খুলনা বিভাগে করোনায় সর্বোচ্চ ৩২ জনের মৃত্যুর রেকর্ড

নিউজ ডেস্ক আপডেট:২৩ জুন, ২০২১ খুলনা বিভাগে করোনায় সর্বোচ্চ ৩২ জনের মৃত্যুর রেকর্ড

খুলনা বিভাগে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়ে ৩২ জনের মৃত্যু হয়েছে। গত বছরের ১৯ মার্চ বিভাগে প্রথম করোনা শনাক্ত হওয়ার পর এটাই এক দিনে সর্বোচ্চ মৃত্যুর সংখ্যা। এ বছরের ২০ জুন এক দিনে সর্বোচ্চ ২৮ জনের মৃত্যু হয়েছিল। এ সময় করোনা শনাক্ত হয়েছে ৯০৩ জনের। আজ বুধবার খুলনা বিভাগীয় স্বাস্থ্য দপ্তর এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

এর আগের ২৪ ঘণ্টায় করোনাভাইরাসের সংক্রমণ শনাক্ত হয়েছিল ৯৯৮ জনের। ওই সময় করোনায় মৃত্যু হয়েছিল ২৭ জনের। সেই হিসাবে ওই দিনের তুলনায় গত ২৪ ঘণ্টায় (গতকাল মঙ্গলবার সকাল আটটা থেকে বুধবার সকাল আটটা পর্যন্ত) নতুন শনাক্ত রোগী কমলেও এবং করোনায় মৃত্যুর ঘটনা বেড়েছে।

এখন পর্যন্ত বিভাগে করোনাভাইরাস শনাক্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে মোট ৪৭ হাজার ৮৭৮। মোট মৃত্যু হয়েছে ৮৯৬ জনের। সুস্থ হয়েছেন ৩৫ হাজার ১৮৫ জন। তাঁদের মধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ২৩৭ জন।

গত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি আটজনের মৃত্যু হয়েছে খুলনায়। এরপর ঝিনাইদহে মারা গেছেন সাতজন। এ ছাড়া চুয়াডাঙ্গায় ৫ জন, কুষ্টিয়ায় ৪ জন, বাগেরহাটে ৩ জন, মেহেরপুরে দুজন এবং যশোর, নড়াইল ও সাতক্ষীরায় একজন করে মারা গেছেন।

বিভাগে করোনায় মোট মারা যাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে খুলনা জেলায় ২২৮, কুষ্টিয়ায় ১৬৬, যশোরে ১১৪, চুয়াডাঙ্গায় ৭৯, ঝিনাইদহে ৭৫, বাগেরহাটে ৭৩, সাতক্ষীরায় ৬৩, মেহেরপুরে ৩৭, নড়াইলে ৩৬ ও মাগুরায় ২৫ জন রয়েছেন। বিভাগে মৃত্যুর হার ১ দশমিক ৮৭ শতাংশ।

স্বাস্থ্য দপ্তরের তথ্য বিশ্লেষণে দেখা গেছে, চলতি জুন মাসের প্রথম ২৩ দিনে ১৩ হাজার ৫৮৭ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এই সময়ে মারা গেছেন ২৫১ জন। এর আগের ২৩ দিনে (৯-৩১ মে) শনাক্ত হয়েছিল ২ হাজার ৪৮৬ জন। ওই সময়ে মারা যায় ৫৭ জন। অর্থাৎ এখন পর্যন্ত মোট শনাক্ত রোগীর ২৮ শতাংশের বেশি শনাক্ত হয়েছে চলতি মাসের ২৩ দিনে। আর মোট মৃত্যুরও ২৮ শতাংশের বেশি মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে এই সময়ে।

স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগের ১০ জেলায় আরটি-পিসিআরের মাধ্যমে ১ হাজার ২৩১টি, র‍্যাপিড অ্যান্টিজেনে ৯৮৭টি এবং জিন এক্সপার্টের মাধ্যমে ৫৫টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে। মোট ২ হাজার ২৭৩ জনের নমুনা পরীক্ষার বিপরীতে রোগী শনাক্তের হার দাঁড়িয়েছে ৩৯ দশমিক ৭৩ শতাংশ। এর আগের দিন এটি ছিল ৪৪ দশমিক ৮৩ শতাংশ। আগের দিনের চেয়ে ৪৭টি নমুনা বেশি পরীক্ষা হয়েছে।

বিভাগে ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে করোনা শনাক্ত ব্যক্তিদের মধ্যে বাগেরহাটে ৬০, চুয়াডাঙ্গায় ৬৪, যশোরে ১২১, ঝিনাইদহে ১১৭, খুলনায় ৩০৫ (করোনা শনাক্তের পর সর্বোচ্চ), কুষ্টিয়ায় ১২২, মেহেরপুরে ৩৫, নড়াইলে ১৯ ও সাতক্ষীরায় ৬০ জন আছেন। এই সময় মাগুরায় কোনো নমুনা পরীক্ষা না হওয়ায় কেউ করোনা শনাক্ত হয়নি।

Source: www.prothomalo.com