ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’ শক্তি বাড়িয়ে প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের রূপ নিয়েছে

নিউজ ডেস্ক আপডেট:২৫ মে, ২০২১ ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’ শক্তি বাড়িয়ে প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের রূপ নিয়েছে

বঙ্গোপসাগর তৈরি হওয়া ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’ শক্তি বাড়িয়ে প্রবল ঘূর্ণিঝড়ের রূপ নিয়েছে। ঘূর্ণিঝড়ের কারণে সমুদ্র বন্দরগুলোকে দেখাতে বলা ২ নম্বর দূরবর্তী হুঁশিয়ারি সংকেত এখনো বহাল রয়েছে।

মঙ্গলবার সকালে আবহাওয়াবিদ এ কে এম রুহুল কুদ্দুস জানান, পূর্ব-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ‘ইয়াস’ উত্তর-উত্তর পশ্চিম দিকে অগ্রসর ও আরও ঘনীভূত হয়ে প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়ে বর্তমানে একই এলাকায় অবস্থান করছে।

এটি মঙ্গলবার ভোর ছয় টায় চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দর থেকে ৫৭৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণ পশ্চিমে; কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ৫২০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণ পশ্চিমে; পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ৪৮০ কিলোমিটার দক্ষিণে এবং মংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ৫১৫ কিলোমিটার দক্ষিণে অবস্থান করছিল।

“অনুকূল আবহাওয়া পরিস্থিতির কারণে প্রবল ঘূর্ণিঝড়টি আরও ঘনীভূত হয়ে উত্তর-উত্তরপশ্চিমে অগ্রসর হয়ে বুধবার ভোর নাগাদ উত্তর পশ্চিম বঙ্গোপসাগর এলাকায় পৌঁছাতে পারে,” বলেন এ কে এম রুহুল কুদ্দুস।

জ্যেষ্ঠ আবহাওয়াবিদ আবুল কালাম মল্লিক জানান, ঘূর্ণিঝড়টি বুধবার ভোর নাগাদ উত্তর ওড়িশা-পশ্চিমবঙ্গ উপকূলের কাছ দিয়ে অতিক্রম করবে। উপকূল অতিক্রম করতে দুপুর নাগাদ লাগতে পারে।

ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৬৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৮৯ কিলোমিটার; যা দমকা বা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ১১৭ কিলোকিমটার পর্যন্ত বাড়ছে।

উত্তর বঙ্গোসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পযন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে।

করোনাভাইরাসের মহামারীর মধ্যে ঘূর্ণিঝড়ের ক্ষয়ক্ষতি এড়াতে উড়িষ্যা ও পশ্চিমবঙ্গজুড়ে ব্যাপক সতর্কতামূলক ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

বাংলাদেশ সতর্কতামূলক পদক্ষেপ নিলেও ইয়াসের গতিপথ দেখে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী এনামুর রহমান আশা করছেন, ঝড়টি এই পথে এগোলে বাংলাদেশের ক্ষতির ঝুঁকি কমবে।

Source: bangla.bdnews24.com