তৃতীয় দিনের শেষে ৩১২ রানে এগিয়ে বাংলাদেশ

নিউজ ডেস্ক আপডেট:২৩ এপ্রিল, ২০২১ তৃতীয় দিনের শেষে ৩১২ রানে এগিয়ে বাংলাদেশ

গতকাল আলোকস্বল্পতা খেলা এগোতে দেয়নি বেশি। আজ দিনের শেষ ভাগেও আচমকা ছায়া পড়ে গেল মাঠে। এর মাঝেও ইবাদত হোসেন ভালো গতির শর্ট বল করে শ্রীলঙ্কান ব্যাটসম্যানদের ধৈর্য পরীক্ষা করছিলেন।

ধৈর্যের সে পরীক্ষায় ফেল করেছিলেন দুই ব্যাটসম্যান দিমুথ করুনারত্নে ও ধনঞ্জয়া ডি সিলভা। প্রথমে ক্যাচ দিয়েছিলেন করুনারত্নে, এরপরই ধনঞ্জয়া। ইবাদতের দুর্ভাগ্য, কোনোবারই ভাগ্যকে পক্ষে পেলেন না। প্রথমে করুনারত্নের পুল শরীর বরাবর আসছে দেখে চোখ সরিয়ে নিয়েছিলেন সাইফ হাসান। ফলে মিসহিট হয়ে বলটা যে তাঁর একদম হাতে এসে পড়ত, সেটা বুঝতে পারেননি বাংলাদেশি ফিল্ডার। আর ইবাদতের বলে ওঠা ধনঞ্জয়ার ক্যাচ ধরার জন্য দ্বিতীয় স্লিপে কোনো ফিল্ডার রাখেননি বাংলাদেশের অধিনায়ক।

ব্যাটিং সহায়ক পিচে উইকেট যেন সোনার হরিণ। তৃতীয় দিনে সেই সোনার হরিণের দেখা বাংলাদেশ পেয়েছে ৩টি। ৩ উইকেটে ২২৯ রান নিয়ে দিন শেষ করেছে শ্রীলঙ্কা। স্বাগতিকরা পিছিয়ে আছে ৩১২ রানে।

যদিও লঙ্কানরা ভালোই জবাব দিচ্ছে। তবে তৃতীয় দিনের শেষ সেশনে একদম খারাপ করেননি তাসকিন-তাইজুলরা। তুলে নিয়েছেন গুরুত্বপূর্ণ দুটি উইকেট। তার আগে দ্বিতীয় সেশনের শেষ বলে একটি উইকেট। সবমিলিয়ে শেষের সময়টায় কিছুটা স্বস্তি পেয়েছে টাইগাররা।

বাংলাদেশের পাহাড়সম ৫৪১ রানের জবাবে একটা সময় বিনা উইকেটেই ১১৪ রান করে ফেলেছিল শ্রীলঙ্কা। সেখান থেকে দুইশর আগেই (১৯০ রানে) স্বাগতিকদের ৩ উইকেট তুলে নেয় মুমিনুল হকের দল। অর্থাৎ ৭৬ রানের ব্যবধানে সাজঘরে ফেরায় তিন ব্যাটসম্যানকে।

চা পানের বিরতির ঠিক আগের বলে শ্রীলঙ্কার উদ্বোধনী জুটিটি ভাঙে বাংলাদেশ। দুর্দান্ত এক ওভারের শেষ বলে হাফসেঞ্চুরিয়ান লাহিরু থিরিমান্নেকে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলে সাজঘরের ঠিকানা ধরিয়ে দেন মেহেদি হাসান মিরাজ। পুরো সেশনে বাংলাদেশের সাফল্য ছিল এই উইকেটটিই।

অবশ্য থিরিমান্নে ফিরতে পারতেন আরও আগে। ইনিংসের ৩৪তম ওভারের দ্বিতীয় বলে রিভিউ না নেয়ার ভুলে পুড়তে হয়েছে টাইগারদের। তাইজুল ইসলামের করা টার্নিং ডেলিভারিটি আঘাত হানে বাঁহাতি ওপেনার লাহিরু থিরিমান্নের পায়ে। কিন্তু আম্পায়ার আউট দেননি। রিভিউও নেয়নি বাংলাদেশ।

পরে টিভি রিপ্লেতে দেখা যায়, সেই বলটি আঘাত হানত লেগ স্ট্যাম্পে। রিভিউ না নেয়ার হতাশায় ডুবতে হয় বাংলাদেশকে। তখন ৫৮ রানে খেলছিলেন থিরিমান্নে। পরে সেশন শেষ হওয়া পর্যন্ত আর কোনো রান যোগ করতে পারেননি তিনি।

Source: www.jagonews24.com