হাসপাতালে থাকছেন ট্রাম্প, দেয়া হচ্ছে রেমডেসিভির

নিউজ ডেস্ক আপডেট:০৪ অক্টোবর, ২০২০ হাসপাতালে থাকছেন ট্রাম্প, দেয়া হচ্ছে রেমডেসিভির

মহামারি করোনার সংক্রমণ শনাক্ত হওয়ার আনুমানিক ১৭ ঘণ্টা পর হেলিকপ্টারে করে দেশের একটি সামরিক হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। প্রথম রাত হাসপাতালে কাটিয়েছেন তিনি। আরও বেশ কিছু সেখানেই থাকতে হতে পারে। ইতোমধ্যে তাকে রেমডেসিভির দিতে শুরু করেছেন চিকিৎসকরা।

হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, আরও কয়েকদিন ‘ওলটার রিড ন্যাশনাল মিলিটারি মেডিকেল সেন্টার’ হাসপাতালে কাটাতে হবে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে। তার চিকিৎসায় পরীক্ষামূলক ওষুধ ব্যবহার করছেন চিকিৎসকেরা। তিনি খুব ভালো আছেন। তাঁকে অক্সিজেন দেয়ার প্রয়োজন নেই। তাকে অ্যান্টিবডির বিশেষ ককটেলও দেয়া হয়েছে।

মেরিল্যান্ডের এই হাসপাতালেই ট্রাম্পের করোনাভাইরাস সংক্রমণের চিকিৎসা চলছে। হোয়াইট হাউসের চিকিৎসা কর্মকর্তা সিন কনলি বলেন, ট্রাম্পকে অক্সিজেন দেয়া লাগবে না কিন্তু বিশেষজ্ঞরা প্রেসিডেন্টের ফুসফুসের স্বাভাবিকতা বজায় রাখতে রেমডেসিভির ওষুধ দিয়ে তার চিকিৎসা শুরু করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

সিন কনলি আরও বলেন, ট্রাম্পকে রেজনারনের অ্যান্টিবডি ককটেলের একটি ডোজ দেয়া হয়েছে। এই চিকিৎসাপদ্ধতি ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের মধ্যে রয়েছে। বিশেষজ্ঞদের একটি দল ট্রাম্পের চিকিৎসা করছেন।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনের এক অনলাইন প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হোয়াইট হাউসের প্রেস সচিব কেলেইজ ম্যাকেনি এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, চিকিৎসকেরা আগামী কয়েকদিন ওয়াল্টার রিড থেকে ট্রাম্পকে দায়িত্বপালন করার পরামর্শ দিয়েছেন। হাসপাতালের বিশেষ একটি কক্ষে ট্রাম্প থাকবেন।

মৃদু উপসর্গ দেখা দেয়ায় স্থানীয় সময় শুক্রবার বিকেল ট্রাম্পকে মেরিল্যান্ডের ওই সামরিক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ওইদিন সন্ধ্যায় এক লিখিত বিবৃতিতে হোয়াইট হাসের চিকিৎসক সিন কনলি জানান, ‘আমি আনন্দের সঙ্গে জানাচ্ছি প্রেসিডেন্ট ভালো আছেন। কিছুটা ক্লান্ত হলেও তিন এখন সুস্থসবল আছেন।

এদিকে ডোনাল্ড ট্রাম্পও হাসপাতাল থেকে শনিবার এক টুইট বার্তায় তার শারীরিক অবস্থার হালনাগাদ তথ্য জানিয়ে লিখেছেন, ‘আমার মনে হচ্ছে, সবকিছু ভালোমতো চলছে।’ তবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের ঠিক ৩২ দিন আগে ট্রাম্প করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হওয়ায় দেশটিতে এক রাজনৈতিক অচলাবস্থার তৈরি হয়েছে।

Source: www.jagonews24.com

করোনা ভাইরাস - লাইভ আপডেট

# দেশ আক্রান্ত মৃত সুস্থ