লকডাউন সফল করতে ১২ পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের

নিউজ ডেস্ক আপডেট:০৯ জুন, ২০২০ লকডাউন সফল করতে ১২ পরামর্শ বিশেষজ্ঞদের

জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণে লকডাউন বা অবরোধব্যবস্থাকে কার্যকর করতে হলে ১২টি মূলনীতি মানতে হবে। প্রতিটি নীতি বাস্তবায়নে সুনির্দিষ্ট কাজের উল্লেখ করে তাঁরা বলেছেন, স্থানীয় মানুষকে সম্পৃক্ত করলে সফলতা আসবে। শহর এলাকায় লকডাউন বাস্তবায়নের কৌশলপত্রে বিশেষজ্ঞরা এসব কথা বলেছেন।

করোনা মোকাবিলায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের আট বিশেষজ্ঞের তৈরি করা কৌশলপত্রের সূত্র ধরে গত দু-তিন দিন লকডাউন নিয়ে নতুন করে আলোচনা শুরু হয়েছে। বিশেষজ্ঞরা করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যার ওপর ভিত্তি করে কোনো এলাকাকে লাল, হলুদ ও সবুজ বলে চিহ্নিত করার প্রস্তাব করেছেন। সব ধরনের এলাকার জন্য সুনির্দিষ্ট বিধিনিষেধের কথা বলা হয়েছে। 

আবার এলাকাগুলোর জন্য তাঁরা ১২টি কাজের সুপারিশ করেছেন। এর মধ্যে আছে স্থানীয় জনগোষ্ঠীকে সম্পৃক্তকরণ, ঝুঁকিবিষয়ক যোগাযোগ, রোগ শনাক্তকরণ পরীক্ষা, শনাক্ত ব্যক্তিকে আইসোলেশনে (সঙ্গনিরোধ) নেওয়া, কনট্যাক্ট ট্রেসিং (আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে আসা লোক খুঁজে বের করা), খাদ্য ও সামাজিক সহায়তা, ১০০ শতাংশ নাগরিকের মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করা, সবাইকে হাত ধোয়ায় উদ্বুদ্ধ করা, সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা, সঠিক চিকিৎসা ও মৃত্যু শূন্যে নামিয়ে আনা, সার্বক্ষণিক নজরদারি এবং অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করা।

সূত্র জানিয়েছে, গত সপ্তাহে আট বিশেষজ্ঞের পক্ষ থেকে চার পৃষ্ঠার এই কৌশলপত্র স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আবুল কালাম আজাদকে দেওয়া হয়। তারপর কৌশলপত্র যায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেকের কাছে। কৌশলপত্র নিয়ে একাধিক মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের সভাও হয়েছে।

১২ সুপারিশ:

১) স্থানীয় জনগোষ্ঠীর সম্পৃক্তকরণ।

২) ঝুঁকিবিষয়ক যোগাযোগ।

৩) রোগ শনাক্তকরণ পরীক্ষা।

৪) শনাক্ত ব্যক্তির আইসোলেশন।

৫) আক্রান্ত ব্যক্তির সংস্পর্শে আসা লোক খুঁজে বের করা।

৬) খাদ্য ও সামাজিক সহায়তা।

৭) ১০০ শতাংশ নাগরিকের মাস্ক ব্যবহার নিশ্চিত করা।

৮) সবাইকে হাত ধোয়ায় উদ্বুদ্ধ করা।

৯) সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা।

১০) সঠিক চিকিৎসা ও মৃত্যু শূন্যে নামিয়ে আনা।

১১) সার্বক্ষণিক নজরদারি।

১২) অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করা।

Source: www.prothomalo.com

করোনা ভাইরাস - লাইভ আপডেট

# দেশ আক্রান্ত মৃত সুস্থ